কাশি না কমায় চিকিৎসকের কাছে গিয়ে গলায় মিলল জোঁকের বাসা!

২ মাস ধ’রে এক নাগাড়ে কাশি। কোনোমতেই সু’স্থ না হওয়ায় শরণাপন্ন হলেন চিকি’ৎসকের। এরপর কিছু পরীক্ষা নিরীক্ষা করানোর পর

যে ভ’য়াবহতা ধ’রা পড়লো তা সত্যি চ’মকে ওঠার মতই। রিপোর্টে দেখা গেলো তার শ’রীরের ভি’তরে দুটি জ্যান্ত জোঁক বাসা বেঁধেছে। গত শুক্রবার

ঘ’টনাটি ঘ’টেছে চীনে। অ’সু’স্থ ঐ ব্য’ক্তির নাম জিংওয়েন কাউন্টি (৬০)। ডেইলি মেইলের এক প্র’তিবেদন থেকে

বিষয়টি জা’না গেছে। ডেইলি মেইলকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে চিকি’ৎসক জা’নিয়েছেন ওই রো’গী এখন সু’স্থ হয়ে উঠছেন। প্র’তিবেদনে বলা হয়েছে বহুদিন ধ’রেই

কাশি হচ্ছিলো জিংওয়েন কাউন্টির। কাশির স’ঙ্গে বেরিয়ে আসছিল র’ক্তও! কোনওভাবেই কাশি না কমায়

শেষমেশ লংগিয়ানের উইপিং কাউন্টি হাসপাতা’লের চিকি’ৎসকের শরণাপন্ন হন। প্রাথমিক সিটি স্ক্যানে কোনও অস্বা’ভাবিক কিছুই দেখা যায় নি। পরে চিকি’ৎসকরা রো’গীর ব্রঙ্কোস্কোপি করেন। এই পরীক্ষায় তার দে’হের ভি’তরে দুটি জ্যান্ত জোঁক দে’খতে পাওয়া যায়।

অ্যাপল ডেইলি নিউজ জানিয়েছে যে, একটি জোঁক মিলেছে তার ডানদিকের নাকে, অন্যটি রো’গীর গ্লটিসের নীচে আ’ট’কে ছিল। ডা. রাও গুয়ানইয়াং রো’গীর লোকাল অ্যানেস্থেসিয়া করার পরে ট্যুইজার দিয়ে প্রায় ১০ সেন্টিমিটার লম্বা ওই জোঁকগু’লি একে একে সরিয়ে ফে’লে ন।

চিকি’ৎসক জা’নান, ‘যখন তিনি জোঁকসমেত ওই জল খেয়ে ফে’লে ন, সম্ভবত তখন জোঁকগু’লি খুবই ছোট আ’কারের ছিল এবং খালি চোখে ধ’রা না পড়াই সেক্ষেত্রে স্বা’ভাবিক। গত এক দু’মাস ধ’রে এই ব্য’ক্তির গলা থেকে র’ক্ত শুঁষে খেয়ে বড় হয়েছে জোঁকগু’লি।’

সূত্র: ডেইলি মেইল, এনডিটিভি

Leave a Reply

Your email address will not be published.