বাস্তব জীবনে তিনি একজন গরীবের ডাক্তার, মাত্র ৩০০ টাকায় রোগী দেখেন তিনি

বৃহত্তর রংপুরের কৃতি সন্তান, সকলের অতি প্রিয় চলচ্চিত্র ও নাট্যাভিনেতা ডাঃ এজাজুল ইসলাম। তিনি গরীবের

ডাক্তার হিসাবেও খ্যাত। এখনও মাত্র ৩০০ টাকায় রোগী দেখেন তিনি। পিতার চাকুরীর সুবাদে দীর্ঘদিন

কে’টেছে তাঁর রংপুরে। তাঁর জন্ম গাইবান্ধার সাদুল্যাপুরে। পিতা ইয়াসিন সাহেব ছিলেন রংপুর প্রাইমারী ট্রেনিং ইন্সটিটিউটের

সুপারেন্টেন্ট। মা মিসেস ফজিলাতুননেসা ছিলেন রংপুর সরকারী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষিকা। রংপুর পিটিআই ক্যাম্পাসের

বাসায় কেটেছে তাঁর জীবনের বড় একটা অংশ। ডাঃ এজাজ পড়েছেন রংপুর মেডিকেল কলেজে। ওনাদের রংপুরের

বাসা নূরপুরে। ওনার বাবা অবসরের পরে নূরপুরে বাড়ি করে সেই বাসায় থাকা শুরু করেন। এজাজুল ইসলাম ১৯৮৪ সালে

রংপুর মেডিকেল কলেজ থেকে এমবিবিএস পাশ করেন। পরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় থেকে

নিউক্লিয়ার মেডিসিনে স্নাতকোত্তর পাশ করেন। তিনি গাজীপুর চৌরাস্তায় একটি চেম্বারে নিয়মিত নাম মাত্র ৩০০ টাকা ফিতে রোগী দেখেন। ছাত্রদের দেন ফ্রি চিকিৎসা। তাঁর ভিজিট ফি কম হওয়ায় তাকে গরীবের ডাক্তার নামে ডাকা হয়।

২০১৭ সালের অক্টোবর মাসে এজাজুল ইসলাম ঢাকা মেডিকেল কলেজে নিউক্লিয়ার মেডিসিনের প্রধান হিসেবে যোগদান করেন। এজাজুল ইসলাম হুমায়ূন আহমেদ পরিচালিত ধারাবাহিক নাটক সবুজ সাথী দিয়ে অভিনয়ের যাত্রা শুরু করেন।

১৯৯৯ সালে হুমায়ূন আহমেদের শ্রাবণ মেঘের দিন চলচ্চিত্রের মাধ্যমে তিনি বড় পর্দায় অভিনয় শুরু করেন। এরপরে তিনি অনেক ব্যবসা সফল সিনেমায় অভিনয় করেন। তারকাঁটা চলচ্চিত্রে মুসা ভাই চরিত্রে অভিনয়ের জন্য ৩৯তম জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারে শ্রেষ্ঠ পার্শ্বচরিত্র অভিনেতার পুরস্কার অর্জন করেন। একজন মানবিক মানুষ ডাঃ এজাজুল ইসলামের প্রতি আমাদের শ্রদ্ধা ও ভালোবাসা।

Leave a Reply

Your email address will not be published.