আমার ছেলের লাশটা খুঁজে দেনঃ বাবার কণ্ঠে আহাজারি

চট্টগ্রামের পাঁচলাইশে ড্রেনে পড়ে নিখোঁজ ১২ বছরের কামালের খোঁজ বুধবার বিকেলেও

মেলেনি।  ‘ছেলে নিখোঁজ হওয়ার পর অনেককে বলেছি এমনকি পুলিশকেও অনুরোধ করেছি কিন্তু

কেউ আমার ছেলেকে খুঁজতে এগিয়ে আসেনি। কাউকে না পেয়ে ছেলেকে খোঁজার জন্য আমি নিজেই

নালায় নামি,’ কাঁদতে কাঁদতে বলছিলেন চট্টগ্রামে নালায় পড়ে নিখোঁজ শিশু কামালের বাবা মোহাম্মদ কাউসার। পেশায় দিনমজুর কাউসার জানান,

তার দুই ছেলে এক মেয়ের মধ্যে কামাল সবার ছোট।‘আমার ছেলের লাশটা অন্তত খুঁজে দেন’, বাবার কণ্ঠে

আহাজারি। নিখোঁজ কামালের বন্ধু রাকিবের সঙ্গে কথা হয়। বলে, গত মঙ্গলবার বিকেলে নালায় নেমে খেলতে গিয়ে হঠাৎ করেই কামাল হারিয়ে যায়।

দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম শহর চট্টগ্রামের রাস্তার পাশে মৃত্যুফাঁদ হয়ে ওঠা নালাগুলোর দুর্ঘটনা এড়াতে কর্তৃপক্ষ কোনো ব্যবস্থাই নিচ্ছে না বলে মনে করেন নগরীর বাসিন্দারা।

নগরবিদরা মনে করছেন, সলিড ওয়েস্ট ম্যানেজমেন্ট না থাকার কারণে চট্টগ্রামের নালাগুলো বর্জ্যের ভাগাড়ে পরিণত হয়েছে। ফলে কেউ নালায় পড়ে গেলে মৃত্যুঝুঁকি অনেকগুণ বেড়ে যাচ্ছে।

চট্টগ্রাম নগর পরিকল্পনাবিদ প্রকৌশলী সুভাষ বড়ুয়া বলেন, ‘সঠিক বর্জ্য ব্যবস্থাপনা না থাকায় চট্টগ্রামের নালাগুলো এখন বর্জ্যের ভাগাড়ে পরিণত হয়েছে।’

Leave a Reply

Your email address will not be published.